বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩rd ডিসেম্বর ২০১৯

সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মধ্যদিয়ে শেষ হলো এস এম সুলতান উৎসব


প্রকাশন তারিখ : 2019-12-01

সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মধ্যদিয়ে শেষ হলো এস এম সুলতান উৎসব

sultan utsob 03বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে নড়াইল জেলা শিল্পকলা একাডেমির ব্যবস্থাপনায় ৩০ নভেম্বর  ও ১ ডিসেম্বর ২০১৯ এস এম সুলতান উৎসব ২০১৯অনুষ্ঠিত হয়েছে। নড়াইলের রুপগঞ্জে অবস্থিত এস এম সুলতান স্মৃতি সংগ্রহশালা, শিশুস্বর্গ ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে দুই দিনব্যাপী এই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

 

উৎসবের ২য় দিন ১ ডিসেম্বর ২০১৯ বিকাল ৪টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মুক্তমঞ্চে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক জনাব লিয়াকত আলী লাকী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম (বার), নড়াইল পৌরসভার মেয়র জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, এস এম সুলতান ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব  আশিকুর রহমান মিকু, জেলা শিল্পকলা একাডেমি নড়াইলের সাধারণ সম্পাদক মলয় কুমার কুণ্ডু। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা। 

সন্ধ্যা 6টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি মুক্তমঞ্চে পরিবেশিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনী। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নৃত্যদল এবং বাউল সংগীত পরিবেশন করেন একাডেমির বাউল শিল্পীবৃন্দ। এছাড়া স্থানীয় শিল্পীরা বিভিন্ন পরিবেশনায় অংশগ্রহণ করে। 

 

আলোচনা পর্বে মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী বলেন, ‘ এস এম সুলতান স্মৃতি সংগ্রহশালাটির আধুনিকায়নসহ চিত্রকর্ম সুরক্ষায় নানমুখি উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। ২০০১ সালে একাডেমির উদ্যোগে নির্মিত হয়েছে একটি দ্বিতল বিশিষ্ট চিত্রকর্ম গ্যালারি। বর্তমানে ২২টি চিত্রকর্ম প্রদর্শনীর জন্য গ্যালারিতে রক্ষিত আছে। জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে রবিবার ব্যতীত প্রতিদিন সকাল সাড়ে নয়টা থেকে বিকাল সাড়ে চারটা পর্যন্ত দর্শনীর বিনিময়ে গ্যালারি পরিদর্শনের ব্যবস্থা করা হয়ছে। সংগ্রহশালার পাশে রয়েছে ১০৮৭ সালে শিল্পীর প্রতিষ্ঠিত শিশুস্বর্গ। যেখানে দুইজন প্রশিক্ষকের তত্ত্বাবধানে শিশুদের নিয়ে নিয়মিত চারুকলা প্রশিক্ষণ পরিচালিত হয়। এছাড়া এস এম সুলতানের নিজস্ব অর্থে কেনা লালবাউল নামক স্থানে বিভিন্ন সময়ে জাতীয় পর্যায়ের শিল্পীদের নিয়ে ২০১৪ সাল থেকে শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও আর্ট ক্যাম্পের আয়োজন করা হয় এবং এস এম সুলতানের স্মৃতি বিজড়িত চিত্রা নদীতে শিশুদের নিয়ে নৌভ্রমন করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। 

২০১২ সাল থেকে রেস্টোরেশন বিশেষজ্ঞ দলের তত্ত্বাবধানে নিয়মিত শিল্পকর্মগুলোর পরিচর্যা করে আসছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। একাডেমির চারুকলা বিভাগের পরিচালককে সভাপতি করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। ২০১৬ সালে একাডেমির উদ্যোগে সবচেয়ে বড় ৩৬ফুট দৈর্ঘের চিত্রকর্মটিসহ সবগুলো চিত্রকর্মের রেস্টোরেশনের কাজ করা হয়েছে। চিত্রকর্মগুলো ও সংগ্রহশালার রক্ষণাবেক্ষণে জন্য ২০১৫ সাল থেকে একাডেমির নিজস্ব অর্থায়ণে সাত জন জনবল নিয়োগ দেয়া হয়েছে। একাডেমি থেকে শিল্পীর পালিত কন্যা নীহার বালাকে মাসিক ভাতা প্রদান করা হয়।

গত ২০ নভেম্বর ২০১৯ ঢাকা থেকে একটি প্রতিনিধি দল নড়াইলে এমএম সুলতান স্মৃতি সংগ্রহশালায় গিয়ে দুই দিনব্যাপী শিল্পকর্মের প্রাথমিক রেস্টোরেশন সম্পন্ন করেছে। এছাড়াও এসি মেরামত, নতুন ডিহিউমিডিফায়ার স্থাপন ও পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

 

উৎসবের প্রথম দিন ৩০ নভেম্বর সকাল ৮টায় এস এম সুলতান স্মৃতি সংগ্রহশালা প্রাঙ্গণে শিশু চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার মধ্যদিয়ে উৎসব শুরু হয়। সকাল ১০টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী ও নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরাসহ জেলা শিল্পকলা একাডেমি ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারীদের নিয়ে এস এম সুলতানের সমাধিতে পুস্পস্তবক অর্পনের মধ্যদিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। এরপর অতিথিরা চিত্রানদীতে শিশুদের নৌকা ভ্রমণ করেন। সকাল ১১টায় শিশুস্বর্গ মিলনায়তনে চিত্রাঙ্গন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ও শিশু কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। 

সকাল ১১.৩০টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমির দুইটি গ্যালারিতে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন চিত্রশিল্পী সাখি ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির গুণীজন সম্মাননা প্রাপ্ত শিল্পীদের চিত্রকর্ম প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়। চিত্রশিল্পীরা হলেন- শিল্পী বিমানেশ বিশ্বাস,  শিল্পী ধীমান বিশ্বাস, শিল্পী নিখিল চন্দ্র দাশ, শিল্পী বলদেব অধিকারী, শিল্পী কংকর সুত্রধর।

 

বিকাল ৪টায় লালবাউল ও শিশুস্বর্গ-2 এ বাউল গানের আসর এবং জেলা শিল্পকলা একাডেমি মুক্তমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় কবিদের অংশগ্রহণে স্বরচিত কবিতা পাঠের আসর। কবি আল ইমরান এর  সভাপতিত্বে কবিতা পাঠ করেন ইসরাইল হোসেন, গোলাম রসুল, আনোয়ারুল ইসলাম, মনিকা মজুমদার, আবু আককাস, কলিপদ সরকার, আশা মনি, শেফালি বিশ্বাস, শহিদুল ইসলাম, আবুল কালাম, আবু বকর মোল্লা, শেখ হাবিবুর রহমান, ইকবাল হোসেন, নূর আলী, সৈয়দ খায়রুল আলম, মাহবুব মনির, মো. মাহাবুবুর রহমান, ভরত চন্দ্র বিশ্বাস, নোমান ইসলাম, বাচ্চু মুনশিসহ ৪০জন কবি কবিতা পাঠ করেন। কবিতা পাঠ পর্বটি সঞ্চালনা করেন কবি সৌম্য সালেক। কবিতা পাঠ শেষে এস এম সুলতানের উপর জীবন ও শিল্পকীর্তি নিয়ে আলোচনা উপস্থাপন করেন শিল্পী শাওন আকন্দ। সবশেষে ছিলো এসএম সুলতানের জীবন ও কর্ম নিয়ে তারেক মাসুদ নির্মিত তথ্যচিত্র ‘আদম সুরত’-এর প্রদর্শনী।

 

#

টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু: জীবন থেকে চিত্রপটেশীর্ষক আর্টক্যাম্প অনুষ্ঠিত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও কারাগারের রোজনামচা’র উপর ভিত্তি করে ১০০জন চিত্রশিল্পীর অংশগ্রহণে ১০০টি শিল্পকর্ম নির্মানের লক্ষে আর্টক্যাম্প আয়োজন করা হয়েছে। গত ১১ অক্টোবর ২০১৯ একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে ও চারুকলা প্লাজায় কর্মসূচির উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়।Art camp

কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১ ডিসেম্বর ২০১৯ টুঙ্গিপাড়ায় আর্টক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। আর্টক্যাম্পে ৭০ এর নির্বাচন থেকে শুরু করে ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর সাড়ে তিন বছরের অর্জনসহ ৭৫ পর্যন্ত সময়কে ১০০ ফুট দৈর্ঘের ক্যানভাসে সিরিজ চিত্রকর্ম অঙ্কন করেছে ১০০ জন চিত্রশিল্পী। এর আগে সকাল ১০টায় গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় একাডেমির মহাপরিচালকসহ আগত শিল্পীরা জাতির পিতার সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্যদিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

আগেরদিন ৩০ নভেম্বর বিকালে শিল্পীরা বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত মধুমতি নদীতে নৌকা ভ্রমন করেন। এরপর সন্ধ্যা 6টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমির শেখ মণি স্মৃতি মিলনায়তনে পরিবেশিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনী। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নৃত্যদল এবং বাউল সংগীত পরিবেশন করেন একাডেমির বাউল শিল্পীবৃন্দ। এছাড়া স্থানীয় শিল্পীরা বিভিন্ন পরিবেশনায় অংশগ্রহণ করে। 

 

আর্টক্যাম্পে অংশগ্রহণকারী শিল্পীবৃন্দ হলেনঃ শিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার, শিল্পী সমরজিৎ রায় চৌধুরী, শিল্পী হাশেম খান, শিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদ, শিল্পী রফিকুন নবী, শিল্পী বীরেন সোম, শিল্পী স্বপন চৌধুরী, শিল্পী আব্দুল মান্নান, শিল্পী চন্দ্র শেখর দে, শিল্পী ইবরাহীম, শিল্পী কে. এম. একাইয়ুম, শিল্পী শহিদ কবির, শিল্পী আব্দুস শাকুর শাহ, শিল্পী মনিরুল ইসলাম, শিল্পী রনজিৎ দাস,  শিল্পী আবুল বারক্ আলভী, শিল্পী নিসার হোসেন, শিল্পী ড. ফরিদা জামান, শিল্পী জামাল উদ্দিন আহমেদ, শিল্পী শিশির কুমার ভট্টাচার্য, শিল্পী শেখ আফজাল হোসেন, শিল্পী ড. মোহাম্মদ ইকবাল আলী, শিল্পী শাহজাহান আহমেদ বিকাশ, শিল্পী আহমেদ শামসুদ্দোহা, শিল্পী কনক চাঁপা চাকমা, শিল্পী রোকেয়া সুলতানা, শিল্পী মো. আনিসুজ্জামান, শিল্পী দেওয়ান মিজান, শিল্পী অনুকুল চন্দ্র মজুমদার, শিল্পী সমীরণ চৌধুরী, শিল্পী আশরাফুল আলম পপলু, শিল্পী মো. আলপ্তগীন, শিল্পী রফি হক, শিল্পী জাহিদ মোস্তফা, শিল্পী মানিক চন্দ্র দে,  শিল্পী কারু তিতাস, শিল্পী মনিরুজ্জামান, শিল্পী এফ. এম. মামুন কায়সার, শিল্পী আতিয়া ইসলাম এ্যানী, শিল্পী নাজমা আকতার, শিল্পী সুনীল কুমার পথিক, শিল্পী অভিজিৎ চৌধুরী, শিল্পী দুলাল চন্দ্র গাইন, শিল্পী রেজাউল করিম, শিল্পী নাইমা হক, শিল্পী সুশান্ত অধিকারী, শিল্পী অশোক কর্মকার, শিল্পী মো. রবিউল ইসলাম, শিল্পী মো. ফারুক আহাম্মদ মোল্লা, শিল্পী ঋতেন্দ্র কুমার শর্মা, শিল্পী সিদ্ধার্থ তালুকদার, শিল্পী রেজাউন নবী, শিল্পী আহমেদ নাজির, শিল্পী তরুণ ঘোষ, শিল্পী সন্জীব দাস অপু, শিল্পী কামাল পাশা চৌধুরী, শিল্পী মাকসুদুল আহসান, শিল্পী কীরিটি রঞ্জন বিশ্বাস, শিল্পী মো. জহির উদ্দিন,  শিল্পী মো. ফজলুর রহমান, শিল্পী শাহীন সোবহানা সুরভী, শিল্পী আফরোজা জামিল, শিল্পী নাসিম আহমেদ নাদভী, শিল্পী গৌতম চক্রবর্তী, শিল্পী শামসুল আলম আজাদ, শিল্পী গোপাল চন্দ্র ত্রিবেদী, শিল্পী সৈয়দ হাসান মাহমুদ, শিল্পী গুলশান হোসেন, শিল্পী রিফাত জাহান কান্তা, শিল্পী রেজাউল হক লিটন, শিল্পী মিনি করিম, শিল্পী সহিদ কাজী, শিল্পী আবদুস সাত্তার তৌফিক, শিল্পী মো. কামাল উদ্দিন, শিল্পী সুমন ওয়াহিদ, শিল্পী বিশ্বজিৎ গোস্বামী, শিল্পী সীমা ইসলাম, শিল্পী হারুন-অর-রশীদ, শিল্পী নাজির হোসেন খান, শিল্পী নাজিয়া আন্দালিব প্রিমা, শিল্পী সুমন কুমার বৈদ্য, শিল্পী আজমল উদ্দীন পলাশ, শিল্পী সৈয়দ ফিদা হোসেন, শিল্পী রাশেদুল হুদা সরকার, শিল্পী আসমিতা আলম শাম্মী, শিল্পী মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম মজুমদার, শিল্পী শাহানুর মামুন,  শিল্পী শেখ ফারহানা পারভীন টুম্পা, শিল্পী আরিফুল ইসলাম, শিল্পী কান্তি দেব অধিকারী, শিল্পী আজমল হোসেন, শিল্পী তৈমুর হান্নান, শিল্পী মানিক বনিক, শিল্পী মিশকাতুল আবীর, শিল্পী রনি মন্ডল, শিল্পী গৌরব নাগ, শিল্পী রত্মেশ্বার সুত্রধর, শিল্পী পলাশ শেখ, শিল্পী এ. কে এম গোলাম উল্লাহ নিশান. শিল্পী অভিজিৎ মন্ডল, শিল্পী আফি আজাদ বানটি, শিল্পী তরিকুল ইসলাম হীরক, শিল্পী সৈকত হোসেন, শিল্পী দিদারুল ইসলাম লিমন, শিল্পী মঞ্জুর রশীদ, শিল্পী মঞ্জুর ইলাহী, শিল্পী তন্ময় দেব নাথ, শিল্পী জাকির হোসেন পুলক, শিল্পী ফাহিম ইসলাম লিমন, শিল্পী চঞ্চল কর্মকার, শিল্পী আবু সুফিয়ান, শিল্পী হাসুরা আক্তার রুমকী।

 

Share with :

Facebook Facebook