বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৮ জানুয়ারি ২০১৯

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির কর্মকর্তাদের বার্ষিক প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত


প্রকাশন তারিখ : 2019-01-27

জেলা ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন বিষয়ক প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির ঢাকা এবং ঢাকাসহ সকল জেলার কর্মকর্তাদের নিয়ে দুইদিনের এই প্রশিক্ষন শুরু হয় ২৫ জানুয়ারি সকাল ১০টায়। কক্সবাজারের বিয়াম ফাউন্ডশন মিলনায়তনে একাডেমির মহাপরিচালক  লিয়াকত আলী লাকী’র সভাপতিত্বে একাডেমির ঢাকা এবং জেলা কার্যালয়ের ৬৩ জন কর্মকর্তা প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেছেন। উপ¯ি’ত ছিলেন একাডেমির নাট্যকলা বিভাগের পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) মো. বদরুল আনাম ভূঁইয়া, প্রকাশনা ও গবেষন বিভাগের পরিচালক মো. জসিম উদ্দিন। প্রশিক্ষণ শেষে অংশগ্রহণকারী কর্মকর্তাদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন একাডেমির সচিব ড. কাজী আসাদুজ্জামান।

কর্মশালায় সারাদেশে বছরব্যাপী সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড, জেলা শিল্পকলা একাডেমির প্রশিক্ষণ কার্যক্রম, জেলা উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি তত্বাবধান ও সমন্বয়, জেলা শিল্পকলা একাডেমি সম্মাননা, ঐতিহ্যবাহী বাংলা নাটকের ডক্যুমেন্টেশন ও ৬৪ জেলায় দেশীয় যাত্রাপালা নির্মাণ, কার্যক্রমে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী সেল গঠন ও পরিচালনা ইত্যাদি বিষয়ে বিস্তারিত পরিকল্পনা আলোচনা করেন মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। জেলা কালচারাল অফিসারবৃন্দ নিজ নিজ জেলা শিল্পকলা একাডেমির কার্মকান্ডের প্রতিবেদন তুলে ধরেন। 

২৫ জানুয়ারি প্রথম দিনের প্রশিক্ষণ শেষে বিকাল সাড়ে ছয়টায় কক্সবাজার জেলা শিল্পকলা একাডেমি কক্সবাজার জেলার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা করে। অনুষ্ঠানের শুরুতে মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিতে সংক্ষিপ্ত আলোচনা পর্বে উপ¯ি’ত ছিলেন একাডেমির সচিব ড. কাজী আসাদুজ্জামান, কক্সবাজার জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক বিশ^্যজিত পাল বিসু এবং কালচারাল অফিসার সুদীপ্তা চক্রবর্তী।

সারাদেশে জেলা কার্যালয়ে কর্মরত ১৪ জন কালচারাল অফিসারকে ভালো কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ ‘সৃজনশীল কালচারাল অফিসার সম্মাননা ২০১৮’ প্রদান করা হয়। পদক প্রাপ্তরা হলেন রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট, রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ, বগুড়া, সুনামগঞ্জ, ঠাকুরগাঁও, চট্টগ্রাম, কুষ্টিয়া, মৌলভীবাজার, নরসিংদী, গাজীপুর ও রংপুর জেলায় কর্মরত কালচারাল অফিসার যথাক্রমে আসাদুজ্জামান সরকার, মো. আরজু পারভেজ, অসিত বরণ দাশ গুপ্ত, পার্থ প্রতিম দাশ, আল মামুন বিন সালেহ, শাহাদাৎ হোসেন, আহমেদ মঞ্জুরুল হক চৌধুরী, সৈয়দ জাকির হোসেন, মো. মোসলেম উদ্দিন, মো. সুজন রহমান, জ্যোতি সিনহা, শাহেলা খাতুন, শারমীন জাহান ও নুঝাত তাবাসসুম রিমু।

দ্বিতীয় দিনে ২৬ জানুয়ারি সকাল ১০টায় প্রশিক্ষণ শুরু হয়ে শেষ হয় দুপুর ২টায়। সমাপনি বক্তব্যে মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী বলেন, ‘এটা শুধু কর্মশালা ছিলো না, এটি ছিলে আগামী দিনে এগিয়ে যাওয়ার ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা। এই ধারায় এগিয়ে গেলেই কাঙ্খিত লক্ষ্য অর্জনের মাধ্যমে শিল্প সংস্কৃতি ঋদ্ধ সৃজনশীল মানবিক বাংলাদেশ বিনির্মাণ সম্ভব হবে।


Share with :

Facebook Facebook